বেগম রোকেয়ার উক্তি

বেগম রোকেয়ার উক্তি বেগম রোকেয়(৯ ডিসেম্বর ১৮৮০- ৯ ডিসেম্বর ১৯৩২) একজন বাঙ্গালি প্রাবন্ধিক, ঔপন্যাসিক, সাহিত্যিকও সমাজ সংস্কারক।তিনিই প্রথম বাঙালি নারীবাদী […]

বেগম রোকেয়ার উক্তি

বেগম রোকেয়(৯ ডিসেম্বর ১৮৮০- ৯ ডিসেম্বর ১৯৩২) একজন বাঙ্গালি প্রাবন্ধিক, ঔপন্যাসিক, সাহিত্যিক
ও সমাজ সংস্কারক।তিনিই প্রথম বাঙালি নারীবাদী এবং বাঙালি মুসলিম নারী জাগরণের অগ্রদূত।


আজকে আমরা জানব মহীয়সী নারী বেগম রোকেয়ার কিছু উক্তি-

★সর্ব অঙ্গেই ব্যাথা, ওষুধ দিব কোথা?

★শিশুকে মাতা বলপুর্বক ঘুম পাড়াইতে বসিলে ঘুম না পাওয়ায় শিশু যখন মাথা তুলিয়া ইতস্ততঃ দেখে
তখনই মাতা বলেন, ঘুমা শিগগির ঘুমা! ঐ দেখ জুজু! ঘুম না পাইলেও শিশু অন্তত চোখ বুজিয়া পড়িয়া
থাকে। সেই রূপ আমরা যখন উন্নত মস্তকে অতীত ও বর্তমানের প্রতি দৃষ্টিপাত করি, অমনই সমাজ
বলে, ঘুমাও ঘুমাও! ওই দেখ নরক! মনে বিশ্বাস না হইলেও অন্তত আমরা মুখে কিছু না বলিয়া নীরব
থাকি।

বেগম রোকের উক্তি
বেগম রোকেয়ার উক্তি

★বাস্তবিক অলংকার দাসত্বের নিদর্শন ভিন্ন আর কিছুই নহে। যদি অলংকারকে দাসত্বের নিদর্শন না
ভাবিয়া সৌন্দর্য বর্ধনের উপায় মনে করা যায়, তাহাই কী কম নিন্দনীয়?সৌন্দর্য বর্ধনের চেষ্টাও
কি মানসিক দুর্বলতা নহে?

★আমরা সমাজের অর্ধাঙ্গ, আমরা পড়িয়া থাকিলে সমাজ উঠিবে কীরূপ? কোনো ব্যক্তি এক পা বাঁধিয়া
রাখিলে সে খোঁড়াইয়া খোঁড়াইয়া কতদূর চলিবে? পুরুষের স্বার্থ এবং আমাদের স্বার্থ ভিন্ন নহে।
তাহাদের জীবনের উদ্দেশ্য বা লক্ষ্য যাহা, আমাদের লক্ষ্য তাহাই।

★দেহের দুটি চক্ষুস্বরূপ, মানুষের সব রকমের কাজ কর্মের প্রয়োজনে দু টি চক্ষুর গুরুত্ব সমান।

★শিক্ষা লাভ করা সব নর নারীর অবশ্য কর্তব্য। কিন্তু আমাদের সমাজ সর্বদা তাহা অমান্য করেছে।

★অশিক্ষিত স্ত্রীলোকের শত দোষ সমাজ অম্লান বদনে ক্ষমা করিয়া থাকে। কিন্তু সামান্য
শিক্ষাপ্রাপ্ত মহিলা দোষ না করিলেও সমাজ কোনো কল্পিত দোষ শতগুণ বাড়াইয়া সে বেচারির দোষ ঐ
শিক্ষার ঘাড়ে চাপাইয়া দেয় এবং শত কন্ঠে সমস্বরে বলিয়া থাকে স্ত্রী শিক্ষাকে নমস্কার!

★আমরা উপার্জন করিব না কেন? আমাদের কি হাত নাই, পা নাই, না বুদ্ধি নাই? কী নাই? যে পরিশ্রম
আমরা স্বামীর গৃহকর্মে ব্যয় করি, সেই পরিশ্রম দ্বারা কি স্বাধীন ব্যবসা করিতে পারিব না?

★কার্জক্ষেত্রে পুরুষের পরিশ্রমের মুল্য বেশি, নারীর কাজ সস্তায় বিক্রয় হয়। নিম্নশ্রেণীর পুরুষ যে
কাজ করিলে মাসে ২ টাকা বেতন পায় ঠিক সেই কাজ স্ত্রীলোকে করিলে ১ টাকা পায়। চাকরের খোরাকী
মাসিক ৩ টাকা আর চাকরানীর খোরাকী ৩ টাকা।

★ভগিনীরা! চুল রগড়াইয়া জাগিয়া উঠুন, অগ্রসর হউন! মাথা ঠুকিয়া বলো মা! আমরা পশু নই; বলো
ভগিনী! আমরা আসবাব নই’ বলো কন্যে আমরা জড়োয়া অলংকার রূপে লোহার সিন্দুকে আবদ্ধ
থাকিবার বস্তু নই; সকলে সমস্বরে বলো আমরা মানুষ।

না জাগিলে ভারর ললনা, এ ভারত আর জাগিবে না।

★আমরা পুরুষের ন্যায় সম্যক সুবিধা নয়া পাইয়া পশ্চাতে পড়িয়া আছি।

★কন্যারা জাগ্রত না হওয়া পর্যন্ত দেশমাতৃকার মুক্তি অসম্ভব।

মেয়েদের এমন শিক্ষায় শিক্ষিত করিয়া তুলিতে হইবে, যাহাতে তাহারা ভবিষ্যৎ জীবনে আদর্শ গৃহিণী,
আদর্শ জননী এবং আদর্শ নারীরূপে পরিচিত হইতে পারে।

আমরা যদি রাজকীয় কাজকর্মে প্রবেশ করিতে না পারি, তবে কৃষিক্ষেত্রে প্রবেশ করিব। ভারতে বর
দুর্লভ হইয়াছে বলিয়া কন্যাদায়ে কাঁদিয়া মরি কেন? কন্যাগুলিকে সুশিক্ষিত করিয়া কার্জক্ষেত্রে
ছাড়িয়া দাও, নিজের অন্নবস্ত্র উপার্জন করুক।

পর্দা অর্থে তো আমরা বুঝি গোপন হওয়া বা শরীর ঢাকা ইত্যাদি- কেবল অন্তঃপুরের চারি প্রাচীর এর
মধ্যে থাকা নহে।এবং ভালোমত শরীর আবৃত না করাকেই বেপর্দা বলে। যাঁহারা ঘরের ভিতর চাকরদের
সম্মুখে অর্ধ নগ্ন অবস্থায় থাকেন, তাঁহাদের অপেক্ষা যাঁহারা ভালমত পোষাক পরিয়া মাঠে বাজারে
বাহির হন, তাহাদের পর্দা বেশি রক্ষা পায়।

★মুসলমান মতে আমরা পুরুষের অর্ধেক। অর্থাৎ দুইজন নারী একজন পুরুষের সমতুল্য। অথবা দুইটি
ভ্রাতা ও একজন ভগিনী একত্র হইলে আমরা আড়াই জন হই।

জহির রায়হান

★আমাদের ধর্মতে বিবাহ হয় পাত্রপাত্রীর দ্বারা। তাই খোদা না করুক বিচ্ছেদ যদি আসে, তবে সেটা
আসবে উভয়ের সম্মতিক্রমে। কিন্তু এটা কেন হয় এক তর্ফা, অর্থাৎ শুধু স্বামীর দ্বারা?

★হুকুর হুকুর কাশে বুড়া,
হুকুর হুকুর কাশে।
নিকার নামে হাসে বুড়া,

ফুকুর ফুকুর হাসে।

★ঐ যে চটকল আর পাটকল- এক একটা জুট মিলের কর্মচারিগন মাসিক ৫০০-৭০০মটাকা বেতন পাইয়া
নবাবী হালে থাকে, নবাবী হালে চলে, কিন্তু সেই পাট যাহারা উৎপাদন করে, তাহাদের অবস্থা এই যে,
পাছায় জোটে না ত্যানা! ইহা ভাবিবার বিষয় নয় কি? আল্লাহতালা এতো অবিচার কিরূপে সহ্য
করিতেছেন?

বেগম রোকেয়ার উক্তি


বৃষ্টি হলে কৈ মাছ কেন পানি থেকে উঠে আসে?


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.