রিভিউ: সবিনয় নিবেদন

সবিনয় নিবেদন ❝ নিজে দুঃখ না দিলে অন্য কেউ তোমাকে দুঃখী করে এমন সাধ্য আছে কার?❞ চিঠি লিখেছেন কখনো?পত্রবন্ধু আছে?এসবের […]

সবিনয় নিবেদন

❝ নিজে দুঃখ না দিলে অন্য কেউ তোমাকে দুঃখী করে এমন সাধ্য আছে কার?❞

চিঠি লিখেছেন কখনো?পত্রবন্ধু আছে?এসবের চল তো এখন উঠেই গেছে।’পেন ফ্রেন্ড’ এর জায়গায় এখন আমাদের ‘অনলাইন ফ্রেন্ড’।কখনো ইচ্ছে করা না,ইশ,আমার যদি একটা পেন ফ্রেন্ড থাকতো সেই নব্বইয়ের দশকের মতো!?বুদ্ধদেব গুহ- র সবিনয় নিবেদন বইটিতে লেখক তুলে ধরেছেন চিঠির মাধ্যমে দুজন মানুষের জীবনগাথা।

সবিনয় নিবেদন
সবিনয় নিবেদন

কাহিনী সংক্ষেপনঃ (স্পয়লার এলার্ট)


কলকাতার বাঙালি মেয়ে ঋতি রায়।মিষ্টি স্বভাবের মেয়েটি তার প্রায় সমবয়েসী কাকীমা শ্রুতি এবং কাকার সঙ্গে বেড়াতে যায় পালামৌ ন্যাশনাল পার্কে।সেখানে গাড়ি দুর্ঘটনায় পরিচয় হয় ডাল্টনগঞ্জ টাইওগার হিল প্রজেক্টের অফিসার রাজর্ষি বসুর সাথে।প্রথম দেখেই ঋতির কাছে তাকে সুপুরুষ মনে হয়েছিল।দুর্ঘটনায় সাহায্য করার জন্য কলকাতায় ফিরেই ধন্যবাদ জানিয়ে রাজর্ষিকে চিঠি লেখে ঋতি।এভাবেই তাদের মধ্যে কথা শুরু হতে।চিঠি চালাচালি চলতে থাকে।
এই ফাঁকে বলে নেওয়া দরকার,সবিনয় নিবেদন কিন্তু সাধারণ উপন্যাসগুলোর মতো নয়।এটি যেহেতু একটি পত্রসাহিত্য তাই প্রতিটি ঘটনাই উঠে এসেছে একেকজনের চিঠির মাধ্যমে।
ঋতির চিঠিতে বেশিরভাগ কথাই সাংসারিক ধরণের।তার পরিবার,ভালো থাকা-মন্দ থাকা, বয়ফ্রেন্ড,জীবনে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া ছোট-বড় ঘটনা বারবার উঠে এসেছে।
রাজর্ষির চিঠিতে আছে বই,গান,মনস্তাত্ত্বিক বিভিন্ন কথা,জংগল, পশুপাখি,আফ্রিকার তানজানিয়া,সেশলস দ্বীপপুঞ্জ ইত্যাদির কথা।
প্রমের কথা ছাড়াও প্রাকৃতিক পরিবেশের বর্ণনা অত্যন্ত প্রাণোচ্ছল ভাবে লিখেছেন বুদ্ধদেব গুহ।

দিঘির জলে কার ছায়া গো

পাঠ প্রতিক্রিয়াঃ

সবিনয় নিবেদন
বুদ্ধদেব গুহ

বুদ্ধদেব গুহ-র বই প্রথমবারের মতো পড়লাম।যে লেখক শুধুমাত্র চিঠি দিয়ে এত ভালো আর হৃদয় অনুরাগী বই রচনা করতে পারেন তার কলমের তেজ যে যারপরনাই বেশি সেটি বুঝতে আর বাকি নেই।
এক কথায় অনবদ্য একখানা বই!!

সবিনয় নিবেদন
✒️বদ্ধদেব গুহ
রেটিংঃ🌟🌟🌟🌟🌟

ttothobari.com


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.