শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর উক্তি

”মানবজমিন” উপন্যাস খ্যাত শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বড়দের জন্য উপন্যাস সাঁতারু ও জলকন্যা। শীর্ষেন্দু ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দে ২রা নভেম্বর ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির […]

মানবজমিন” উপন্যাস খ্যাত শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের বড়দের জন্য উপন্যাস সাঁতারু ও জলকন্যা। শীর্ষেন্দু ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দে ২রা নভেম্বর ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন। লেখকের আরো বিখ্যাত উপন্যাস গুলোর মধ্যে আছে পার্থিব,দূরবীন, যাও পাখি,গয়নার বাক্স।জনপ্রিয় এই লেখব “মানবজমিন” উপন্যাসের জন্য ১৯৮৮ সালে সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার পান।

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর উক্তি

জহির রায়হান(১৯আগস্ট ১৯৩৫-৩০ জানুয়ারি১৯৭২)

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি

মানবজীবন বইয়ের কিছু লাইনঃ- 

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
Goodreads শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় এর উক্তি
  • বোধ হয় স্বামী স্ত্রীর সবচেয়ে বড় প্রবলেম হলো অহংকারের লড়াই।
  • বকুলকে কে যেন শিখিয়েছিল ছেলেদের সঙ্গে মিশতে নেই। তার বিষণ্ণ, গম্ভীর, সুন্দর মুখে সবসময় একটা অদৃশ্য নোটিশ ঝুলতঃ আমার দিকে কেউ তাকাবে না, একদম তাকাবে না খবরদার তাকাবে না।
  • দুটো শব্দ আছে, জানো!  রমনীয় আর পরম। ওদের কাছে জীবন হলো রমণীয়, আমাদের কাছে পরম।
  • ভালবাসলেই অ্যাকসেপ্ট করা যায় ঠিকই কিন্তু অ্যাকসেপ্ট করলেই ভালোবাসা যায় কি?_ কোলাজ

বকুল ফুলঃ মনোয়ারুল ইসলাম

গয়নার বাক্স বইয়ের কিছু লাইনঃ- 

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
  • আমি যে তাকে ভালোবাসি তা তার রূপের জন্যও নয়, গুণের জন্যও নয়। ভালো না বেসে থাকতে পারি না বলে বাসি।_ গয়নার বাক্স
  • বেশির ভাগ মানুষেরই  অভ্যাস হলো, যেখানে বলার কথা কিছু নেই সেখানেও অকারণে কথা বলে যায়, প্রয়োজন থাক বা না থাক।_গয়নার বাক্স

ইন্দুবালার ভাতের হোটেল

সাঁতারু ও জলকন্যা বইয়ের কিছু লাইনঃ-

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
  • পঞ্চাশ ছোঁয়া বয়সটা বড় মারাত্মক ভাটির টান যখন লাগে মানুষ তখন ভোগসুখের জন্য পাগল হয়ে যায়, জানেতো আর বেশি সময় নেই হাতে, শরীরের ক্ষমতা আর বেশিদিন থাকবে না! ণত্ব ষত্ব জ্ঞান হারিয়ে তখন সে কেবল খাই খাই করে খাবলাতে থাকে চারপাশের ভোগ্যবস্তুকে চুলে কলপ দেয় রঙ চঙে জামা গায়ে চড়ায়, সেন্ট মাখে! আর স্ত্রী? স্ত্রীর করার কি বা থাকে বিষচক্ষে দেখে যেতে হয়! দু’ জনার মাঝে অসীম ব্যবধান তৈরি হয়!
  • যখন কোন মেয়ে দু’বেলা খাবার, মাথার ওপরে একটু ছাদ এর বেশি আরো কিছু আছে তা বুঝতে শিখে, তবেই তার ভেতরে জন্ম নেয় লজ্জা আর রোমাঞ্চ!
  • সংসারের সম্পর্কগুলো এমন সব সূক্ষ্ম ভারসাম্যতার ওপরে নির্ভর করে যে একটা মাছি বসলেও পাল্লা কেৎরে যায়।
  • আলাপ করতে একটা টিউনিং দরকার, টিউনিং না থাকলে কথা আসেনা।
  • ব্যাধিময়, ব্যথাময়, নশ্বর এই শরীর নিয়ে মানুষের কত না ভাবনা, কিন্তু শরীরখানা দেওয়া হয়েছে এটাকে দিয়ে কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য, বসিয়ে বা আরাম করার জন্য না!
  • গয়নার বাক্স (শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়)
  • অসুখ হওয়াটা বড় কথা না, তার’ চে বড় কথা হলো অসুখ অসুখ ভাবটা!
  • বাপ আর ছেলের মধ্যে যেমন জেনারেশন গ্যাপ থাকে, দাদা আর নাতীর মধ্যে তেমনটা থাকে না। ছেলে আর বাপের মধ্যে সরাসরি সংঘর্ষের সম্ভাবনা থাকে দাদু আর নাতির মধ্যে তা নেই! প্রজন্মগত পার্থক্যটা বেশি হলে তাদের মধ্যে এক সমঝোতা গড়ে ওঠে!
  • বেঁচে থাকলে, শুধু  বেঁচে থাকতে পারলে কোন রকমে বেঁচে থাকলে জীবনে কত কী যে হয়! কত কী পাওয়া যায়!
  • জলের ঐশ্বর্যকে যেদিন আপনি আবিষ্কার করতে পারবেন, সেদিন ভাঙ্গাজমির ওপরকার এই বসবাস আপনার কাছে পানসে হয়ে যাবে!
  • শরীর অনেক বেশি রোগাটে হলে, দেখে বুঝা মুশকিল সে আসলে ফর্সা নাকি শ্যামলা!
  • বেঁচে থাকতে পারে তারাই যাদের বেঁচে থাকাটা অন্য কেউ চায়, যাদের ভালোবাসার লোক আছে!
  • এক এক সময় মানুষের কথা ফুরিয়ে যায়!
  • নতুন বউ মাত্রই ভালো! কী যে অদ্ভুত নতুন বউয়ের গায়ের গন্ধ, মুখের লজ্জা রাঙা ভাব, মুখের হাসি! হাসি মুখে কথা বলে সবসময়!
  • কারো আদর কাড়া কথা শুনলে, মন মরা জীবনেও মাঝে মাঝে বাঁচতে বাঁচার ইচ্ছে জাগে, অল্প আদর পেলেই মনে হয় অনেকখানি পেয়ে গেলাম। আর বুঝি কিছু চাওয়ার নেই!
  • শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
  • ভালোবাসা এমন একটা জিনিস যা সব জ্ঞানকে গ্রাস করে নিতে পারে।
  • মানুষের কোনো গন্তব্য নেই,শুধু গতি আছে।
  • সাফল্য তাকেই বলে যখন মানুষ নিজের সঙ্গে এই গোটা বিশ্বজগত এর প্রকৃত সম্পর্কটা আবিষ্কার করতে পারে।
  • প্রত্যেকটা মানুষের মাঝে লুকনো, অব্যবহিত কিছু গুণ থেকে যায়।
  • সে হয়তো সারা জীবন নিজের সেই গুণটার কথা জানতেই পারে না।
  • গুণটা থেকেও নষ্ট হয়।
  • দুনিয়াতে যত সাধুবাদ আছে তার মধ্যে একটু করে মিথ্যে থাকে।
  • যত প্রশংসা বাক্য আছে,তার অধিকাংশই একটু বাড়তি কথা।
  • যা কিছু দেখবে,যাকেই দেখবে,তাকেই ভালোবাসার চেস্টা কর।
  • ভালোবাসা মানেই কিন্তু ভালো করা।তার ভালোর জন্যে কিছু যদি না-ই করলে তাহলে ভালোবাসা বন্ধ্যা হয়ে গেল,মিথ্যে হয়ে গেল।
  • মাতৃভাষাকে অবজ্ঞা করলে দাঁড়ানোর জায়গা পাবে না।বাঙালিরা বড্ড তাড়াতাড়ি আন্তর্জাতিক হয়ে যায়,তাই তাদের শক্তি কম।
  • দুনিয়াতে পালিয়ে যাওয়ার কোনো জায়গা নেই।
  • মানুষের পালানোর সবচেয়ে ভালো জায়গা হলো তার মন।
  • যদি সেখানে ঢুকে কপাট বন্ধ করে দিতে পারি তবে কেউ আর নাগাল পাবে না।

পার্থিব উপন্যাসের উক্তি

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি
  • ভালোবাসা এমন একটা জিনিস যা সব জ্ঞানকে গ্রাস করে নিতে পারে।
  • মানুষের কোনো গন্তব্য নেই,শুধু গতি আছে।
  • সাফল্য তাকেই বলে যখন মানুষ নিজের সঙ্গে এই গোটা বিশ্বজগত এর প্রকৃত সম্পর্কটা আবিষ্কার করতে পারে।
  • প্রত্যেকটা মানুষের মাঝে লুকনো, অব্যবহিত কিছু গুণ থেকে যায়।
  • সে হয়তো সারা জীবন নিজের সেই গুণটার কথা জানতেই পারে না।
  • গুণটা থেকেও নষ্ট হয়।
  • দুনিয়াতে যত সাধুবাদ আছে তার মধ্যে একটু করে মিথ্যে থাকে।
  • যত প্রশংসা বাক্য আছে,তার অধিকাংশই একটু বাড়তি কথা।
  • যা কিছু দেখবে,যাকেই দেখবে,তাকেই ভালোবাসার চেস্টা কর।
  • ভালোবাসা মানেই কিন্তু ভালো করা।তার ভালোর জন্যে কিছু যদি না-ই করলে তাহলে ভালোবাসা বন্ধ্যা হয়ে গেল,মিথ্যে হয়ে গেল।
  • মাতৃভাষাকে অবজ্ঞা করলে দাঁড়ানোর জায়গা পাবে না।বাঙালিরা বড্ড তাড়াতাড়ি আন্তর্জাতিক হয়ে যায়,তাই তাদের শক্তি কম।
  • দুনিয়াতে পালিয়ে যাওয়ার কোনো জায়গা নেই।
  • মানুষের পালানোর সবচেয়ে ভালো জায়গা হলো তার মন।
  • যদি সেখানে ঢুকে কপাট বন্ধ করে দিতে পারি তবে কেউ আর নাগাল পাবে না

আরো জানতে আমাদের কন্ঠনীড়ে সাইটে থাকুন

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় উক্তি


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.