• Home
  • রিভিউ
  • গয়নার বাক্স (শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়)

গয়নার বাক্স (শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়)

গয়নার বাক্স নামটা শুনে মনে হতে পারে এই বুঝি বিশাল কোন গয়নার বাক্স নিয়ে গল্প।যদি আপনার  এমন মনে হয় তাহলে […]


গয়নার বাক্স নামটা শুনে মনে হতে পারে এই বুঝি বিশাল কোন গয়নার বাক্স নিয়ে গল্প।যদি আপনার  এমন মনে হয় তাহলে স্বাগতম আপনাকে গয়নার বাক্সে। গল্পের মূল কেন্দ্রে রয়েছে একশ ভরি গয়না

একশ ভরি গয়নার বাক্স

 

গয়নার বাক্স
গয়নার বাক্স


সোমলতার বিয়ে হয়েছে বিশাল বনেদী ঘরে।যদিও সোমলতা গরিব ঘরের মেয়ে কিন্তু কপাল জোরে বনেদী বাড়িতে ঠাঁই  পেয়েছে।এই বিশাল জমিদার  বাড়িতে আছে  শ্বশুর,শাশুড়ী, ভাসুর, জা আর এক বাল্যবিধবা পিসি।যেহেতু সোমলতা জমিদার বাড়ির বউ তাই তাকে সুযোগ পেলে শুনানো হয় অকট্ট ভাষা এবং দেশের বাড়ির জমিদারির গল্প বলা।তাদের পূর্বের সহায় —সম্পত্তির হিসেব নিকেশ সোমলতা কে অপমান আর নিচু দেখাতে শোনানো হয় তা সে ঢের টের পায়।

গয়নার বাক্স
গয়নার বাক্স

এই বাড়িতে অবশ্য শাশুড়ী মা বেশ নরম মনের মানুষ, সেও গরিব ঘরের মেয়ে এই বিশাল জমিদার বাড়িতে এখনো খাপ খাওয়াতে পারেনি। কিন্তু বিপত্তি বাধে সোমলতার জা আর পিসি মা কে নিয়ে তারা কেউ  সোমলতা কে সহ্য করতে পারেনা তবে ভাসুর খুব নরম মনের মানুষ।এক কালে এই জমিদার বাড়িতে অনেক  সহায়-সম্পত্তি ছিলো কিন্তু কথায় আছে না “বসে  খেলে রাজার ভান্ডার ও ফুরিয়ে যায়”। এই জমিদার বাড়ির ছেলেদের এই অবস্থা। ঘরের সান আর জমি বিক্রি করে চলে সোমলতার যৌথ পরিবার।

 গীতাঞ্জলী কাব্যগ্রন্থের রিভিউ পড়ুন


সোমলতার  স্বামী বি,এ পাশ। শান্ত শিষ্ট এবং খুবই সংবেদনশীল।  বিশেষ গুণ  বলতে তবলা বাজানো ছাড়া আর কিছু খুঁজে পাওয়া যাবে না।একদিন শাশুড়ির পরামর্শে অলস স্বামীকে ব্যবসার উপদেশ দেন সোমলতা প্রথমে তেমন গুরুত্ব না দিলেও তা গ্রহণ করেন এবং সোমলতার গয়না বেঁচে একটি শাড়ির দোকান দেয়।প্রথমে ব্যবসা ভালো না চললেও সোমলতার বুদ্ধি আর বিচক্ষণতায় আস্তে আস্তে সব থেকে বেশি বেঁচা কেনা হয় তাদের ব্যাবসায় সাফল্য আসে।

কিন্তু ব্যবসায় শুরু করার কিছুদিন আগে সোমলতার বাল্যবিধবা পিসিমা (যিনি একশ ভরি গয়নার বাক্স আগলে রাখতেন আর বাড়ির সবার নজর ছিলো সেই গয়নার উপরে এই গয়না বেঁচে চলবে সেই বিধবা পিসি মারা গেলেন কিন্তু ভূত হয়ে গয়না আগলে রাখলেন মরার পরেও। ) 

গয়নার বাক্স

হ্যারি পটার সিরিজ সম্পরকে জানতে- হ্যারি পটার সিরিজ পড়ুন 


ভুতের কথা শোনে যদি মনে হয় এটি কোনো ভূতের গল্প তাহলে ভুল হবে শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের দুর্ধান্ত উপন্যাস কোনক্রমেই ভূতুড়ে কাহিনী নয়। এর পরে কি শেষ?  না এরপরে কি  হলো তা জানতে হলে পড়তে হবে গয়নার বাক্স বইটি

লেখক পরিচিত

 গয়নার বাক্স

  শীর্ষেন্দু ১৯৩৫ খ্রিস্টাব্দে ২রা নভেম্বর ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন।  তিনি  বাংলায় স্নাতক করেন। তার কিছু উল্লেখযোগ্য  উপন্যাস হলো যাও পাখি,গুহামানব,ক্ষয়, চোখ,মানবজমিন, দূরবীন,পারাপার, পার্থিব

জাহানারা ইমামের জীবনী

গ্রন্থতালিকা

তার প্রথম গল্প জলতরঙ্গ শিরোনামে ১৯৫৯ খ্রিষ্টাব্দে দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। সাত বছর পরে ঐ একই পত্রিকার পূজাবার্ষিকীতে ঘুণ পোকা নামক তার প্রথম উপন্যাস প্রকাশিত হয়। ছোটদের জন্য লেখা তার প্রথম উপন্যাস মনোজদের অদ্ভুত বাড়ি।  শবর দাশগুপ্ত সৃষ্ট অন্যতম জনপ্রিয় চরিত্র

পুরস্কার

  • বিদ্যাসাস্কার(১৯৮৫) – শিশুসাহিত্যে অবদানের জন্য।
  • আনন্দ পুরস্কার (১৯৭৩ ও ১৯৯০)
  • সাহিত্য অকাদেমি(১৯৮৮)-  মানবজমিন উপন্যাসের জন্য।
  •  বঙ্গবিভূষণ(২০১২)
  • তথ্য সূত্র : উইকিপিডিয়া

বই বিবরণ

  • লেখক: শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়
  • প্রকাশনী: আনন্দ পাবলিশার্সপ্রথম প্রকাশ: ১৯৯৩ সাল
  • ধরন: পশ্চিমবঙ্গের উপন্যাস
  • পৃষ্ঠা সংখ্যা: ৮৭
  • দ্বিতীয় সংস্করণ দ্বিতীয় মুদ্রণ : জানুয়ারি ২০১৬
  • প্রচ্ছদ : সুনীল শীল
  •  মূল্য : ১৮০

আরো জানতে আমাদের কন্ঠনীড়ে সাইটে থাকুন


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.