ফোবিয়া কী ?

ফোবিয়া …

ফোবিয়া                                          

ফোবিয়া হলো একটি নির্দিষ্ট ভয় যার ফলে আক্রান্ত ব্যক্তি সবসময় কোনো নির্দিষ্ট বস্তু বা পরিস্থিতি থেকে  দূরে থাকার চেষ্টা করে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে সেই বস্তু বা পরিস্থিতিতে ভয় পাওয়ার কোনো যুক্তিপূর্ণ কারণ থাকে না। আক্রান্ত ব্যক্তির ভয়ের মাত্রা এতটাই থাকে যে সেই বস্তু সম্পর্কে চিন্তা করলেও তারা আতংকিত হয়।

আজকে আমরা এই ফোবিয়া সম্পর্কেই জানবো:

ফোবিয়া

ফোবিয়াকে আতঙ্ক,ভয়রোগ,ভীতিরোগ ইত্যাদিও বলা হয়।ফোবিয়া কোনো বস্তু, প্রাণী,স্থান বা পরিস্থিতির উপর হতে পারে। উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় জনবহুল স্থান, ট্রেন, প্লেনসহ বিভিন্ন যানবাহনে যাতায়াত করা, সামাজিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হওয়া, জীবজন্তু, উচ্চতা ,অতিপ্রাকৃত ব্যাপারে ভয় ইত্যাদি।

ফোবিয়ার লক্ষণঃ

  • হৃদস্পন্দন বেড়ে যায়।
  • অতিরিক্ত ঘাম,বুকে ব্যথা এবং বমি হয়।
  • অজ্ঞান হতে পারে।
  • মাথা ঘুরে।
  • শরীরে কাঁপুনি এবং শরীর অবশ হতে পারে।

ফোবিয়ার প্রধান কারণ কী কী?

ফোবিয়া
  • অতীতে ঘটে যাওয়া কোনো দুর্ঘটনা বা পরিস্থিতি যার ফলে মৃত্যু ঘটতে পারতো।
  • জিনগত কারণ বা পরিবারের সদস্যদের মধ্যে একই প্রকৃতির ভয় থাকলে।
  • এংজাইটি ডিজঅর্ডারের রোগী হয়ে থাকলে ইত্যাদি।
  • সাঁতারু ও জলকন্যা ( শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়)

চিকিৎসা বা নির্ণয় পদ্ধতিঃ

উপরের উল্লেখিত লক্ষণ গুলো দেখা গেলে বিষয়টি নিয়ে কারো সাথে আলোচনা করা উচিত। মন অশান্ত হলে  জন্য  যোগ ব্যায়াম,  ধ্যান ইত্যাদি রিল্যাক্সেশন টেকনিক এর সাহায্যে দেহ ও মনকে শান্ত করা যায়।

খুব বেশি সমস্যা অনুভব করলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিৎ। অধিকাংশ ক্ষেত্রে ফোবিয়ার কোনো চিকিৎসার দরকার পড়ে না।

চিকিৎসা পদ্ধতিগুলো হচ্ছে-

  • কাউন্সেলিং এবং থেরাপির মাধ্যমে ধাপে ধাপে আতংকের উৎসের মুখোমুখি হয়ে সমস্যা সম্বন্ধে চিন্তা ধারার পরিবর্তন আনা।
  • ভয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত উদ্বেগ উপশমের ওষুধ সেবন করা।
  • একই ফোবিয়ায় আক্রান্ত অন্যান্য রোগীদের সাথে গ্রুপ থেরাপির মাধ্যমে ভয় কমিয়ে আনা।
  • কগনিভিটি বিহেভিয়রাল থেরাপি দেওয়া।
  • যোগ ব্যায়াম ও ধ্যান জাতীয় রিলাক্সেশন টেকনিকের মাধ্যমে মন শান্ত রাখা।
  • সমরেশ মজুমদারের জীবনী পড়ুন

বিভিন্নরকম ফোবিয়ার নামঃ

  • গ্লসো ফোবিয়া – glosso phobia: এই ফোবিয়া আক্রান্ত ব্যক্তি জনসম্মুখে কথা বলতে ভয় পান।
  • এক্রো ফোবিয়া বা এলটো ফোবিয়া- acro phobia, alto phobia: উচ্চতা ভীতি।
  • টোকো ফোবিয়া-toko phobia: সন্তান জন্মদানের ভয়।
  • ট্রিপানো ফোবিয়া- trypano phobia: সূচ বা ইনজেকশনের প্রতি আতংক।
  • ওয়ার্ক প্লেস ফোবিয়া-workplace phobia: কর্মক্ষেত্রে যাওয়ার ভয়।
  • এভিয়ো ফোবিয়া-avio phobia: প্লেনে উড়ার ভয়।
  • এনথো ফোবিয়া-antho phobia: ফুলের ভয়।
  • সিবো ফোবিয়া-cibo phobia: খাবার খাওয়ার  প্রতি বিরক্তি বা আতংক।
  • ক্লাসট্রো ফোবিয়া- claustro phobia:  বন্ধ জায়গায় থাকার ভয়।
  •  হেলিয়ো ফোবিয়া- helio phobia:  সূর্য অথবা সূর্যের আলোর ভয়।
  • টেট্রাটো ফোবিয়া- tetra phobia:  ৪ নম্বর সংখ্যার প্রতি ভয়।
  • ট্রামাটো ফোবিয়া- tramatophobia:  আঘাত পাওয়ার ভয়।
  • জেনো ফোবিয়া- xeno phobia: বিদেশী, অচেনা জিনিস বা ব্যক্তির প্রতি ভয়।
  • হিলো ফোবিয়া- hylophibia:  বন জঙ্গল বা গাছপালার ভয়।
  • একুয়া ফোবিয়া- aqua phobia: পানি বা পানি জাতীয় পদার্থ ও কেমিক্যাল ইত্যাদির ভয়।
  • ডেন্টাল ফোবিয়া- dental phobia:  ডেন্টিস্ট বা দাঁত সম্বন্ধীয় ব্যাপারে ভয়।
  • ডিস্ফো ফোবিয়া-dysmorpho phobia:  কল্পিত বা সত্যিকারের দেহ সমস্যার ভয়।
  • গেলোটো ফোবিয়া –geloto phobia:   নিজেকে নিয়ে কৌতুক অথবা হাসাহাসি করার ভয়।
ফোবিয়া
  • গভর্নমেন্ট ফোবিয়া- government phobia:  সরকারের ভয়। সব ক্ষতির জন্য সরকারকে দায়ী করা।
  • ইরগো ফোবিয়া- ergo phobia:  কাজের প্রতি ভয়।
  • একুস্টিকো ফোবিয়া-acoustico phobia:  শব্দ ভীতি।

এগুলো ছাড়াও আরোও অসংখ্য ফোবিয়া রয়েছে মানুষের

আরো জানতে আমাদের কন্ঠনীড়ে সাইটে থাকুন


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.