তাকে ভালোবেসে-বুক রিভিউ

বইয়ের নাম তাকে ভালোবেসে! নাম শুনে মনে হয় না যে রোম্যান্টিক বই? আবার প্রচ্ছদ দেখেই মনে হয়,” আরে না,রোম্যান্টিক কী […]

বইয়ের নাম তাকে ভালোবেসে! নাম শুনে মনে হয় না যে রোম্যান্টিক বই? আবার প্রচ্ছদ দেখেই মনে হয়,” আরে না,রোম্যান্টিক কী করে হবে! প্রচ্ছদে যে ভূত-প্রেতের ছবি!” এটাই মনে হয় বইটার বিশেষত্ব।তাকে ভালোবেসে বইটি মূলত হরর হলেও রয়েছে ভালোবাসার ছোয়াও! তবে এই ভালোবাসা আর পাঁচটা রোম্যান্টিক বইয়ের মত না। ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে উঠেছে কখনও মানুষে-মানুষে, কখনও মানুষের সাথে প্রেতাত্মার আবার কখনও রোবটের সাথে মানুষের!

তাকে ভালোবাসি
Image sources: তাকে ভালোবাসি-র ফেসবুক পেজ

এবার মূল আলোচনায় আসা যাক-

তাকে ভালোবেসে বইটিতে মোট গল্প রয়েছে ১৩ টি। গল্পগুলো

⬛ বিলযিবাবঃ এই গল্পে ফুটে উঠেছে প্রাচীন দেবদাসী প্রথার কথা। গ্রামের পূজায় গিয়ে গল্পকথক পড়ে বিলযিবাব নামের দানবের কবলে। তারপর কী হলো? তারপরের ঘটনাটাই তো এই গল্পে লেখিকার দেওয়া টুইস্ট। গল্প শেষ করার পর আমার মাথায় একটাই কথা এসেছিল,” এরপর কী হলো লেখিকাকে জিজ্ঞেস করতে হবে!“

◼ রাজপুত্র আসবেইঃ এই গল্পটিকে আমি হরর বলব না।গল্পটিতে মূলত ফুটে উঠেছে ভালোবাসা ,অপেক্ষা আর বিশ্বাসের কথা। গল্পটি পড়লে মনে হবে, সত্যিই বুঝি মন থেকে কাউকে চাইলে এবং সে আসবে এই বিশ্বাস নিয়ে কারো জন্য অপেক্ষা করলে তার খোঁজ পাওয়া যায়! 

◼পুতুলঃ এই গল্পটি মূলত পেডিওফোবিয়ায় আক্রান্ত একজন মেয়ের জীবনের কাহিনী নিয়ে। হঠাৎ করেই জীবনের সবচেয়ে পছন্দের জিনিসটাই  যার জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্করকর বস্তুতে পরিণত হয়। আর সেই পুতুলের কারণেই হারাতে হয় নিজের সবচেয়ে আপনজনকে।।

◼অরুণিমাঃ এই গল্পটি বেশ স্বাভাবিকভাবেই লিখেছেন লেখিকা। কাউকে যে এক মুহূর্তেই  ভালবাসা যায় সেই কথাটিই ফুটে উঠেছে গল্পটিতে।

◼কর্ণ পিশাচিনীঃ আমার কাছের এই বইয়ের সেরা গল্প এটি। কর্ণ পিশাচিনী সম্পর্কে অনেক তথ্য রয়েছে গল্পটিতে। ভালোবাসা, ক্ষমতার লোভ, পিশাচিনীর কথা এসবই রয়েছে গল্পটিতে। একসাথে অনেকগুলো অনুভূতির স্বাদ পেয়েছি গল্পটি পড়ে।

◼বন্দিনীঃ এই গল্পটি এক সাইকো এবং একা যুবককে নিয়ে। যে নিজের একাকীত্ব কাটানোর জন্যে বন্দি করে রাখে এক মেয়েকে এবং পরবর্তীতে ভালোবেসে ফেলে নিজের বন্দিনীকে।

◼এক্সপেরিমেন্টঃ যারা অমরত্বের সন্ধান চান তাদের জন্যেই এই গল্প। এই গল্পে রয়েছে অমরত্ব লাভের উপায়!!

◼আমার পল্টুঃ এই গল্পটিতে উঠে এসেছে ভালোবাসায় অন্ধ হয়ে এক নির্দোষ মানুষের উপর প্রতিহিংসার কাহিনী। যে প্রতিহিংসার কারণে খুন করতে হয় নিজের সবচেয়ে ভালোবাসার ছোট্ট ছেলেকে!

◼ভ্যাম্পায়ার গার্লঃ এই এক সিরিয়াল কিলারের কাহিনী। তবে গল্পের টুইস্ট হচ্ছে শুরুতে যাকে ভ্যাম্পায়ার গার্ল ভাবা হয় শেষে গিয়ে দেখা যায় সে নয়!

◼তুমি শুধুই আমারঃ এই গল্পটিতে দেখা যায় মানুষ এবং রোবটের সম্পর্ক। মানুষের প্রতি রোবটের মোহ! মনে হচ্ছে তো, “রোবটের আবার মোহ কেমন!” গল্পটি পড়লেই বোঝা যায় যে এটাও ঘটতে পারে এবং কতটা ভয়ংকর হতে পারে।

◼একদিন হঠাৎঃ ভূতের দেখা পাওয়ার কৌতূহল সামলাতে না পেরে নিজের পুরো পরিবারকে খুন করার এক অদ্ভুত লোমহর্ষক কাহিনীকে ঘিরে এই গল্পটি।

◼প্রত্যাবর্তনঃ তন্ত্রসাধনায় সিদ্ধি লাভ করার জন্যে মানুষ নিজের সন্তানকে মেলে ফেলছে! বিশ্বাস হয়? হ্যাঁ, এমনটাই হয়েছে এই গল্পে।

◼তাকে ভালোবেসেঃ মানুষ যে ভালোবাসার মানুষকে পাবার জন্য কতটা মরিয়া হয়ে উঠতে পারে এই গল্পটি পড়েই বুঝতে পেরেছি। ভালোবাসা, তন্ত্র-মন্ত্র, আয়ুর্বেদ জড়িবুটি সবকিছুর মিশ্রণে এই গল্পটি লিখেছেন লেখকা।

পাঠ প্রতিক্রিয়া

আমি খুব একটা হরর বই না পড়লেও ভূত প্রেত সম্পর্কে আগ্রহ আছে অনেকটাই।কোথাও ভূত সম্পর্কে কোনো তথ্য পেলে নোট করে রাখতেও ভুল হয় না। প্রতিটা গল্পেই রয়েছে টুইস্ট। ব্যক্তিগত ভাবে সব গল্পই যে সবার  ভালো লাগবে এমন না হওয়াই স্বাভাবিক। তবে আমার কাছে প্রতিটা গল্পকেই তার নিজের জায়গায় ঠিকঠাক বলে মনে হয়েছে। গল্পগুলো বেশ সহজভাবেই বলেছেন লেখিকা। যার ফলে একঘেয়েমি আসবে না। সব মিলিয়ে আমার কাছে বেশ লেগেছে বইটা। প্রথম বই হিসেবে যথেষ্টই ভালো।তাছাড়া বই শুরুর আগেই উৎসর্গ পাতার দিকে তাকালেই লেখিকার প্রতি মায়া পড়ে যাবে। এক কথায় নির্ভেজাল একটি বই!

বইয়ের মান

নহলী বইয়ের মানের ক্ষেত্রে শুরু থেকেই সচেতন বলে আমি জানি। তাকে ভালোবেসে বইয়ের মানও ভালো। তবে সামান্য কিছু ত্রুটি আমার চোখে ধরা পড়েছে।একটু -আধটু স্পেলিং মিস্টেক এবং বন্দিনী গল্পটি নাম পুরুষে লেখা হলেও হঠাৎ একজায়গায় উত্তম পুরুষে লেখা হয়েছে।ছোট খাট ত্রুটি সবারই থাকে। ধীরে ধীরে ঠিকও হয়ে যায়।  কিন্তু সব মিলিয়ে বইয়ের মান যথেষ্ট ভালো।আমি বইটি বেশ আরাম করেই পড়েছি ।

লেখিকা

নীলা মনি গোস্বামী(জন্ম ২৭ ডিসেম্বর,১৯৯৬) এর জন্ম কুমিল্লায়। হাসিখুশি এই মেয়েটির প্রিয় স্বপ্ন নিজের লেখা একগাদা বই  বগলদাবা করে ঘুরে বেড়ানো! আর সে একটু একটু করে তার স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।‘ তাকে ভালোবেসে’ তার প্রথম বই। দেখতে দেখতে  তার বইয়ের সংখ্যা এখন চার। বর্তমানে সে ন্যাশনাল কলেজ অফ হোম ইকোনমিক্স থেকে শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগে পড়ালেখা করছে। দেশব্যাপী লেখিলেখির মাধ্যমে বইয়ের কথা ছড়িয়ে দিতে তৈরি প্লাটফর্ম রাইটার্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা হরর কুইন নামে পরিচিত এই মেয়েটি।

বই পরিচিতি

বইয়ের নামঃ তাকে ভালোবেসে

লেখিকাঃ নীলা মনি গোস্বামী

প্রকাশকালঃ অমর একুশে বইমেলা ২০১৯

প্রকাশনীঃ নহলী

প্রকাশকঃ বদরুল মিল্লাত

পৃষ্ঠাঃ ৯২

প্রচ্ছদ মূল্যঃ ২০০ টাকা মাত্র

গ্রন্থস্বত্বঃ লেখক

রিভিউয়ার – সুমাইয়া শেফা

হিমু সমগ্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুন এখানে।

টাইম ম্যানেজমেন্ট (রিচার্ড ওয়ালশ) বুক রিভিউটি পড়ুন এখানে।


Popular Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.